আজ বুধবার, ১৯শে জুন, ২০১৯ ইং, ৫ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

তানোরে সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার আমিনুল হকের জানাজায় হাজারো মানুষের ঢল

নিজস্ব প্রতিবেদক :
রাজশাহীর তানোর উপজেলা ডাক বাংলো মাঠে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী এবং তানোর-গোদাগাড়ী আসনের এমপি ব্যারিস্টার আমিনুল হকের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জানাজায় উপজেলা বিএনপির নেতাকর্মীসহ হাজার হাজার সাধারণ মানুষ অংশগ্রহণ করেন। মঙ্গলবার বাদ জোহর জানাজা উপলক্ষে দুপুরের আগে থেকেই লোকজন জড়ো হতে থাকে। প্রিয় নেতাকে একনজর দেখতে সাধারণ মানুষজন ভিড় জমায়। জানাজার নামাযে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর আসনের এমপি হারুন অর রশীদ, রাজশাহী-৩ আসনের এমপি আয়েন উদ্দিন, তানোর পৌর মেয়র মিজানুরসহ বিএনপির নেতৃবৃন্দ ও সাধারণ মানুষ।
জানাজায়, উপস্থিত নেতৃবৃন্দ ব্যারিস্টার আমিনুল হকের রাজনৈতিক জীবন নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন।উল্লেখ্য, উল্লেখ্য, গত রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রাজধানী ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালের আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর। এর আগে তাকে সিঙ্গাপুর থেকে অপারগতা

প্রকাশ করে ঢাকায় ফেরত পাঠানো হয়। তারপর থেকে তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন ছিলেন। এদিকে, এই নেতার মৃত্যুতে তানোর গোদাগাড়ীবাসীর বিএনপি নেতাকর্মীদের মাঝে শোকের ছাড়া নেমে আসে। তার মৃত্যুতে এ দুই উপজেলার মানুষের অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে গেল। নেতাকর্মীদের মধ্যে হতাশা বিরাজ করে। রাজশাহী-১ তানোর-গোদাগাড়ী আসন থেকে ব্যারিস্টার আমিনুল হক তিন তিনবার এমপি নির্বাচিত হন। এরমধ্যে একবার সংস্থাপন প্রতিমন্ত্রী ও একবার ডাক টেলিযোগাযোগ মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। দেশের বাইরে থাকায় নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তার পরিবর্তে তার বড় ভাই পুলিশের সাবেক আইজিপি এনামুল হক এমপি পদে বিএনপি থেকে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করেন। ২০১৪ সালে দল নির্বাচন বর্জন করায় তিনি অংশগ্রহণ করেননি। সর্বশেষ ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে অংশগ্রহণ করলেও আ’লীগ প্রার্থীর কাছে পরাজিত হন। এই নেতা কাজের মাধ্যমে তানোর-গোদাগাড়ীতে তুমুল জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। তার জানাজার প্রথম নামাজ অনুষ্ঠিত হয় সংসদ ভবনে, হাইকোর্ট প্রাঙ্গনে ও তারপরে বিএনপির কেন্দ্রীয় অফিসের সামনে জানাজার নামায অনুষ্ঠিত হয়। নামাযে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাকর্মীরা অংশগ্রহণ করেন। ব্যরিষ্টার আমিনুল হকের মৃত্যুতে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র ও এমপি মিজানুর মিনু, রাসিকের সাবেক মেয়র ও নগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ও জেলা বিএনপির সভাপতি এ্যাড. তোফাজ্জল হোসেন তপু শোক প্রকাশ করেন। তারা শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন ও মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন। এ ছাড়াও বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে ব্যারিস্টার আমিনুল হকের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেন। বিকেলে গোদাগাড়ী মরহুমের জানাজার নামায অনুষ্ঠিত হবে।

আর/এস


Download our Mobile Apps Today