আজ বৃহস্পতিবার, ৭ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং, ২৩শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

জাবি ভিসির বিরুদ্ধে অভিযোগ, যা বললেন প্রধানমন্ত্রী

খবর২ ৪ঘণ্টা,  ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের (ভিসি) বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ প্রমাণ করতে না পারলে আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের করবী হলে সাংবাদিকদের অনুদান প্রদান অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, অসুস্থ ও আহত সাংবাদিকদের পাশে থাকবে আওয়ামী লীগ সরকার। সরকারি তহবিল থেকে সব ধরণের সাহায্য সহযোগীতা করার চেষ্টা করা হবে।

তিনি বলেন, আপনারা যারা পত্রিকার মালিক পক্ষ আছেন, তারা যদি অল্প অল্প করে আমাদের কিছু সহযোগিতা করেন, তাহলে তা এক সময় বড় ফান্ডে পরিণত হবে। যা অসুস্থ ও আহত সাংবাদিকদের জন্য ব্যয় করা হবে। যেন আপনার কর্মীদের কষ্টে থাকতে না হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি ব্যক্তিগত ও সরকারিভাবে সব সময় চেষ্টা করে যাবো অসুস্থ ও আহত সাংবাদিকসহ সকল মানুষের সাহায্য সহযোগতীয় পাশে থাকার জন্য।

জাবিতে চলমান আন্দোলন প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসির বিরুদ্ধে দুর্নীতির সুনির্দিষ্ট অভিযোগ প্রমান করতে পারলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অন্যথায় দুর্নীতির অভিযোগ যদি প্রমাণ করতে না পারে তাহলে আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কারণ দিনের পর দিন এভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ থাকতে পারে না।

এদিকে জাবি উপাচার্যকে অপসরণের দাবিতে আন্দোলনের কারণে অর্নিদিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণার পরেও বুধবার দফায় দফায় বিক্ষোভ, সংহতি সমাবেশ ও উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন আন্দোলনকারী শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

এমতাবস্থায় রাত ৮টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ অফিসের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক আব্দুস সালাম মিঞা স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ৫ নভেম্বর ২০১৯ তারিখে অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেটের জরুরি সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৬ নভেম্বর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ক্লাস ও পরীক্ষা অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

তবে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বৃহস্পতিবার বেলা ১২টায় বিক্ষোভ ও সন্ধ্যায় ভিসির বাসভবনের সামনে কনসার্টের ঘোষণা দিয়েছেন।

আন্দোলনকারীরা বলছেন, ভিসির বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। জাহাঙ্গীরনগরকে দুর্নীতিমুক্ত করতে শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচি পালন করছি। কিন্তু আমাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে পুলিশি হামলার আশঙ্কা করছি আমরা।

আন্দোলনকারী এক শিক্ষক বলেন, আমরা শঙ্কার মধ্যে আছি। যে প্রশাসন ছাত্রলীগ দিয়ে আমাদের ওপর হামলা করিয়েছে তারা পুলিশ দিয়ে নিজেদের বেষ্টিত করে রেখেছে। যে কোনো সময় তারা হামলাও চালাতে পারে।

খবর ২৪ঘণ্টা/ জেএন


Download our Mobile Apps Today