সবার আগে.সর্বশেষ  
ঢাকাসোমবার , ২৫ ডিসেম্বর ২০১৭
আজকের সর্বশেষ সবখবর

শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে সহকারী শিক্ষক প্রতিনিধিরা

R khan
ডিসেম্বর ২৫, ২০১৭ ৪:৩৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

খবর২৪ঘণ্টা.কম, ডেস্ক: বেতন স্কেলে বৈষম্য দূর করার দাবিতে রাজধানীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আজ সোমবার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকদের আমরণ অনশনের তৃতীয় দিন চলছে। শিক্ষকদের একটি প্রতিনিধিদল প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমানের বাসভবনে বৈঠকে বসেছেন।

বৈঠকে উপস্থিত একজন শিক্ষক নেতা  বলেন, কিছুক্ষণ আগে এ বৈঠক শুরু হয়েছে।

রাজধানীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গত শনিবার সকাল ১০টা থেকে বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক মহাজোটের ডাকে এ কর্মসূচি শুরু হয়। সহকারী শিক্ষকদের আটটি সংগঠন এই কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছে। সংগঠনের নেতারা ঘোষণা দিয়েছেন, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাঁরা অনশন চালিয়ে যাবেন।

আন্দোলনকারী বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক মহাজোটের একজন নেতা মোহাম্মদ সামছুদ্দীন প্রথম আলোকে বলেন, আজ পর্যন্ত প্রায় ৪০ জন শিক্ষক অসুস্থ হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে ১৭ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। আর কয়েকজন বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। তিনি বলেন, দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত তাঁদের আন্দোলন চলবে।

বেতন বৈষম্য নিরসণের দাবিতে রাজধানীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকদের আমরণ অনশন কর্মসূচি চলছে। ২৪ ডিসেম্বর ২০১৭, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, ঢাকা।শনিবার সকাল ১০টা থেকে শুরু হওয়া এই কর্মসূচির আজ তৃতীয় দিনেও দেখা গেছে, অসংখ্য শিক্ষক কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনশন পালন করছেন। অনেকে এই শীতের রাতেও এখানে অবস্থান করেছেন।

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার এক নারী শিক্ষক বলেন, শনিবার থেকে তিনি এখানেই পলিথিনের নিচে থাকছেন। তিন দিন ধরে তিনি এক কাপড়েই আছেন।

শিক্ষকেরা বলছেন, তাঁরা এক দফা দাবিতে এখানে আন্দোলন করছেন। তাঁদের দাবি, প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকদের বেতনস্কেল প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের এক ধাপ নিচে রাখতে হবে। বর্তমানে প্রধান শিক্ষকদের চেয়ে তিন ধাপ নিচের স্কেলে বেতন পান প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকেরা। বর্তমানে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকেরা বেতন স্কেলের ১১তম গ্রেডে (এই গ্রেড শুরুর মূল বেতন ১২,৫০০ টাকা) বেতন পান। আর প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকেরা পান ১৪তম গ্রেডে (এই গ্রেডের শুরুর মূল বেতন ১০,২০০ টাকা)।

শিক্ষকদের এ আন্দোলনে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা এসে সংহতি জানাচ্ছেন। বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির নেতা রুহিন হোসেন প্রিন্সসহ কয়েকজন সংহতি জানিয়ে বক্তব্য দিয়েছেন।

খবর২৪ঘণ্টা.কম/রখ

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।