সবার আগে.সর্বশেষ  
ঢাকারবিবার , ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮
আজকের সর্বশেষ সবখবর

রাবি শিক্ষককে রামেক হাসপাতাল চিকিৎসকদের মারধর: তদন্তের নির্দেশ আদালতের

নজরুল ইসলাম জুলু
ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৮ ১:৩৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সহযোগি অধ্যাপক প্রফেসর এনামুল জহিরকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসক কর্তৃক মারধরের ঘটনায় তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। গত বৃহস্পতিবার রাজশাহী মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত (রাজপাড়া থানা) এর বিচারক মো. কুদরাত-ই-খোদা ২৫ ফেব্রুয়ারীর মধ্যে প্রকৃত ঘটনা তদন্ত করে রিপোর্ট প্রদানের নিদের্শ দেন রাজপাড়া থানার ওসিকে।

ওই আদেশে বলা হয়, খবর ২৪ ঘন্টা ওয়েব সাইটে ” রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষককে পেটালো রামেক হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসকরা” শিরোনামে প্রকাশিত খবরে দেখা যায় যে, রাবির আইন বিভাগের সহযোগি অধ্যাপক এনামুল জহিরকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করা হয়েছে এবং তাকে অপমানজনক খারাপ কথা বলা হয়েছে। ওই সংবাদে বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে রামেক হাসপাতালের ৩০ নং ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে মর্মে উল্লেখ করা হয়েছে যা অত্রাআদালতের এখতিয়ারধীন। উক্ত রিপোর্টে যে অপরাধের সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে তা পেনাল কোডের ৩২৩/৫০০ ধারার অধীন দন্ডনীয় অপরাধ। এমতবস্থায় উক্ত ঘটনার

বিষয়ে যথাযথ তদন্তপূর্বক আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারীর মধ্যে রিপোর্ট দাখিলের জন্য ওসি রাজপাড়াকে নির্দেশ প্রদান করা হলো। এ ছাড়া উক্ত সংবাদে প্রকাশিত ঘটনায় আইন শৃঙ্খলা বিঘ্নকারী অপরাধ (দ্রুত বিচার) আইন ২০০২ এর ২(উ) ধারার অধীন প্রতিষ্ঠানে পরিকল্পিতভাবে বা আকস্মিকভাবে একক বা দলবদ্ধভাবে শক্তির মহড়া বা দাপট প্রদর্শন করিয়া ভয়ভীতি বা ত্রাস সৃষ্টি করা বা বিশৃঙ্খলা বা অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি করা হয়ে থাকলে তা এজাহার হিসেবে গন্য করত তদন্ত সম্পন্ন করার নির্দেশ প্রদান করা হলো। ইন্টারনেটের মাধ্যমে প্রকাশিত উক্ত সংবাদের প্রিন্ট কপি নালিশ হিসেবে নথিতে সংযুক্ত করে তার ফটোকপি ওসি রাজপাড়াকে সরবরাহ করতে হবে।


এ বিষয়ে রাজপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি হাফিজুর রহমান বলেন, খবর ২৪ ঘণ্টার সংবাদের প্রেক্ষিতে আদালত রাবি শিক্ষককে মারধরের ঘটনা তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন। আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারীর মধ্যে রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
তদন্তকার্রী কর্মকর্তা রাজপাড়া থানার এসআই মুস্তাক বলেন, আদালত থেকে পাঠানো আদেশের তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে আদালতে রিপোর্ট জমা দেওয়া হবে। তিনি আরো বলেন, মারধরের ঘটনাতো ঘটেছিল। প্রাথমিকভাবে এর সত্যতা পাওয়া গেছে। বিবাদী এজাহার দিলে তা গ্রহণ করে ব্যবস্থারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে পুলিশকে।

উল্লেখ্য, গত ১৪ ফেব্রুয়ারী রাতে রামেক হাসপাতালের ৩০ নং ওয়ার্ডে ইন্টার্ন চিকিৎসকের সাথে খারাপ ব্যবহার করা হয়েছে এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক এনামুল জহিরকে মারধর করা হয়। তার প্রেক্ষিতেই খবর ২৪ ঘণ্টাই একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। ওই সংবাদের ভিত্তিতেই আদালত ঘটনাটি তদন্তের নির্দেশ দেয়।

খবর২৪ঘণ্টা/এমকে

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।