আজ শনিবার, ৩০শে মে, ২০২০ ইং, ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মাঠে ক্রিকেট ফেরাতে নতুন গাইডলাইন তৈরি করেছে আইসিসি

খবর২৪ঘন্টা স্পোর্টস ডেস্ক: করোনাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে মাঠে ফিরেছে ফুটবল। জার্মান বুন্দেসলিগা শুরু হয়েছে গত সপ্তাহ থেকে। ইতালি, স্পেন এবং ইংল্যান্ডেও ফুটবল ফেরার অপেক্ষায় রয়েছে। সুতরাং, ক্রিকেট বাকি থাকবে কেন? খেলাটির অভিভাবক সংস্থা আইসিসি তাই, ক্রিকেটকে মাঠে ফেরাতে কিছু গাইডলাইন দিয়ে দিলো সদস্য দেশগুলোকে।

গাইডলাইন দেয়ার কারণ হচ্ছে, যেন সংশ্লিষ্ট সবাই নিরাপদে থেকে ক্রিকেটীয় কর্মকাণ্ড পরিচালিত করতে পারে। ক্রিকেটে সম্পৃক্ত হতে গিয়ে কেউ যেন আবার স্বাস্থ্য নিরাপত্তা ঝুঁকিতে পড়ে না যায়। সে সঙ্গে সদস্য দেশগুলো যেন একটা নিরাপদ অবস্থানে থেকে ক্রিকেটীয় কর্মকাণ্ড শুরু করতে পারে, সে কারণেও এই গাইডলাইন তৈরি করে দিয়েছে তারা।
advertisement

যে গাইডলাইন আইসিসি বেধে দিয়েছে, তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে- প্রতিটি দেশই এখন থেকে একজন চিফ মেডিক্যাল অফিসার (সিএফও) নিয়োগ দেবে। যার কাজ হবে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সব বিষয়গুলো দেখভাল করা। একই সঙ্গে প্রতিটি দল ম্যাচ শুরুর আগে অবশ্যই ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন পালন করবে।

করোনাভাইরাসের কারণে ব্যাপক আকারের এই গাইডলাইনটি তৈরি করেছে আইসিসির মেডিক্যাল এডভাইজরি কমিটি। তারা আবার আলোচনা করেছে প্রতিটি সদস্য দেশের মেডিক্যাল প্রতিনিধিদের সঙ্গে। সেখানেই বড় পয়েন্ট হিসেবে উঠে এসেছে যে, ‘প্রতিটি দেশ একজন কর প্রধান মেডিক্যাল কর্মকর্তা বা বায়োসেফটি কর্মকর্তা নিয়োগ দেবে। যার মূল কাজ হবে, সংশ্লিষ্ট দেশের সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি সম্পূর্ণ রূপে পালন করার ব্যবস্থা করা।’

এছাড়া বড় যে পয়েন্টটি উঠে এসেছে, সেটা হচ্ছে, ‘প্রি-ম্যাচ ট্রেনিং সেশনের আগে বাধ্যতামূলক ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন পালন করতে হবে প্রতিটি ক্রিকেট দলকে। এর আগেই সংশ্লিষ্ট সবার কোভিড-১৯ টেস্ট করতে হবে। কোভিড-১৯ ফ্রি সার্টিফিকেট পাওয়ার পরই কেবল কোনো খেলোয়াড় বা দলকে সফরের অনুমতি দেয়া হবে।’

আরেকটি পয়েন্ট উঠে এসেছে সেখানে। তা হলো, ‘প্রতিটি বোর্ডকেই খেলোয়াড়দের ট্রেনিং এবং প্রতিযোগিতার সময় একটি সঠিকমানের টেস্টিং প্ল্যান তৈরি করতে হবে।’

তবে আইসিসির এই গাইডলাইনে কিন্তু এটা বলা হয়নি যে, কবে থেকে ক্রিকেট মাঠে গড়াবে কিংবা প্রতিটি দেশের ক্রিকেটাররা অনুশীলন শুরু করবে। ক্রিকেটারদের অনুশীলন শুরু করা কিংবা ক্রিকেটীয় কর্মকান্ড শুরু করার বিষয়টা নির্ভর করবে সংশ্লিষ্ট ক্রিকেট বোর্ড এবং সেদেশের সরকারে নির্দেশনার ওপর। আইসিসি শুধুমাত্র স্বাস্থ্যগত নিরাপত্তার জন্য একটি ফ্রেমওয়ার্ক তৈরি করে দিয়েছে।’

আইসিসি সদস্য দেশগুলোর কাছে তাদের গাইডলাইন পাঠিয়ে দিয়ে অনুরোধ জানিয়েছে, তারা যখন নিজস্ব নীতি অনুসারে ক্রিকেট মাঠে ফেরানোর কাজ শুরু করবে, তখন যেন এই গাইডলাইনের আলোকেই পরিকল্পনা তৈরি করে।

খবর২৪ঘন্টা/নই


Download our Mobile Apps Today