আজ বৃহস্পতিবার, ৩রা অক্টোবর, ২০১৯ ইং, ১৮ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বাগমারায় খাস পুকুরের সাব লীজ বাতিলের অভিযোগ করায় প্রাণ নাশের চেষ্টা

বাগমারা প্রতিনিধি:
রাজশাহীর বাগমারায় সরকারী খাস পুকুরের সাব লীজ বাতিলের অভিযোগ করায় বাদীর বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়ি-ঘর ভাংচুর সহ প্রাণ নাশের চেষ্টা চালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার মাড়িয়া ইউনিয়নের গোয়ালপাড়া গ্রামের ৪ টি খাস পুকুরের সাব লীজ বাতিলের জন্য এইক গ্রামের মোসলেম আলী মোল্লার ছেলে মামুন হোসেন বাদী হয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সহ বাগমারা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানাগেছে, এই ৪টি খাস পুকুর গনিপুর ইউনিয়নের পশ্চিম মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির নামে টেন্ডারের মাধ্যমে লীজ প্রদান করা হয়। পরে সমিতির নামে লীজ কৃত পুকুরটি সরকারী বিধিমালা লঙ্ঘন করে একই ইউনিয়নের জনৈক রেজাউল করিমকে সাব-লীজ প্রদান করে। সাব লীজ গ্রহীতা রেজাউল করিম তক্তপাড়া গ্রামের মৃত নাসির উদ্দীনের ছেলে মকছেদ আলীর নিকট পুনরায় সাব-প্রদান করে সাব লীজ গ্রহীতা রেজাউল করিম।
মকছেদ আলী পুকুর সাব-লীজ গ্রহণের পর থেকে পুকুরগুলোর আশেপাশে বসবাসকারী জনসাধারণকে কৃষি জমিতে সেচ সহ সকল প্রকার ব্যবহারযোগ্য কাজ থেকে পানি ব্যবহার করতে নিষেধ করা হয়।
এদিকে উক্ত পুকুরে শ্যালো মেশিন বসিয়ে পানি শুকিয়ে ফেলা হচ্ছে। এর ফলে নিত্য প্রয়োজনীয় কাজে পানি ব্যবহার করতে পারছেনা পুকুরের আশপাশের লোকজন। এতে করে নানা সমস্যায় পড়তে হচ্ছে স্থানীয়দের।
বিষয়টি নিয়ে আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর মধ্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দপ্তরে তদপ্ত পূর্বক দাখিলের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন নির্বাহী কর্মকর্তা। এদিকে সময়ের আগেই পানি শুকিয়ে ফেলছে মকছেদ আলী।
লীজ বাতিলের অভিযোগকারী মামুন হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, অভিযোগ দায়েরের পরেই সোমবার রাতে সাব-লীজ গ্রহীতা মকছেদ আলী ও তার ছেলে তুষার সহ কয়েকজন মিলে আমাকে ধারালো অস্ত্র নিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে ধাওয়া করে। আমি পালিয়ে প্রাণে বেচে গেলেও তারা আমার বাড়ি ঘর ভাংচুর করে। আমি গরীব মানুষ। ভ্যান চালিয়ে অনেক কষ্টে সংসার চালায়। তাদের বিরুদ্ধে লীজ বাদিতলের অভিযোগ করায় প্রাণ ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছি।

অভিযোগের তদন্ত কর্মকর্তা বাগমারা থানার পিএসআই আব্দুল কুদ্দুস জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনাস্থলে গিয়ে মেশিন বন্ধ করা হয়েছে। এছাড়াও বাদীকে যেন কোনরুপ ভয়ভীতি প্রদর্শন না করার জন্য বীবাদীদের বলা হয়েছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাকিউল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে তিনি বলেন, সমিতির নামে নেয়া সরকারী খাস পুকুর যদি সরকারী বিধি লঙ্ঘন করে কোন সমিতি কাউকে বেশি লাভের আশায় সাব-লীজ প্রদান করে তাহলে টেন্ডারের শর্ত ভঙ্গ করিলে লীজ বাতিল করে ওই সমিতির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আর/এস


Download our Mobile Apps Today