আজ শুক্রবার, ৫ই জুলাই, ২০১৯ ইং, ২১শে আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

দেশে প্রথম ‘ব্যাল্যবিয়ে প্রতিরোধী অ্যাপস’ উদ্বোধন চাটমোহরে

পাবনা প্রতিনিধি: দেশে প্রথম পাবনার চাটমোহরে ‘বাল্যবিয়ে প্রতিরোধী অ্যাপস’ উদ্বোধন ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সেই অ্যাপস ব্যবহারের জন্য ট্যাব বিতরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (০৪ জুলাই) দুপুরে উপজেলার মুলগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে আয়োজিত অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক কবির মাহমুদ প্রধান অতিথি হিসেবে অ্যাপস উদ্বোধন ও ট্যাব বিতরণ করেন।

এ সময় জেলা প্রশাসক বলেন, সন্তানদের শুধু জিপিএ-৫ পাওয়ানোর প্রতিযোগিতায় হবে না, তাদের মানুষের মতো মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। এজন্য প্রধান ভূমিকা পালন করতে হবে মায়েদের। সন্ধ্যার পর স্টার জলসা-জ্বি বাংলা না দেখে সন্তানের পাশে বসে লেখাপড়া দেখতে হবে। সন্তান কোথায় যায়, কার সাথে মেশে খেয়াল রাখতে হবে। সন্তানের হাতে মোবাইল তুলে না দিয়ে, বই ও খেলাধুলার সামগ্রী তুলে দিয়ে তাদের চারিত্রিক গঠনে ভূমিকা রাখতে হবে পরিবারকেই।

অনুষ্ঠানে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ‘বাল্যবিয়ে প্রতিরোধী অ্যাপস’ ব্যবহারের জন্য ১০টি ট্যাব, ২৬টি ডিজিটাল হাজিরার মেশিন ও ৭০৮ জন শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ হিসেবে স্কুলব্যাগ বিতরণ করা হয়।

মুলগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান রাশেদুল ইসলাম বকুলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শাফিউল ইসলাম, উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ মাস্টার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সরকার অসীম কুমার।

স্থানীয় সরকার বিভাগের এলজিএসপি-৩ এর আর্থিক সহায়তায় এই ‘বাল্য বিয়ে প্রতিরোধী অ্যাপস’র পরিকল্পনা ও ব্যবস্থাপনায় রয়েছেন চাটমোহর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরকার অসীম কুমার। তিনি জানান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্রীদের কমনরুমে ট্যাব রাখা থাকবে। বাল্যবিয়ের বিষয়ে তারা অ্যাপসে ঢুকে নিজের নাম-ঠিকানা, শ্রেণী-রোল নাম্বার দিয়ে তার সমস্যার কথা লিখলে মেসেজ চলে যাবে উপজেলা প্রশাসনের কাছে। তখন প্রশাসন থেকে তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। শুধু বাল্যবিয়েই নয়, যেকোনো যৌন হয়রানী, নির্যাতন বিষয়েও একইভাবে অ্যাপসে ছাত্রীরা জানালে উপজেলা প্রশাসন দ্রæত ব্যবস্থা নেবে।

গুগল প্লে স্টোরেও পাওয়া যাবে ‘বাল্যবিয়ে প্রতিরোধী অ্যাপস’। অনুষ্ঠানে জনপ্রতিনিধি, অভিভাবক, শিক্ষক-শিক্ষার্থী, সাংবাদিক, সুধীজন উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গেলো বছর দেশে প্রথম চাটমোহর উপজেলার মুলগ্রাম ইউনিয়নে ঘরে বসে ট্যাক্স পরিশোধ করা ও ইউনিয়ন পরিষদের বিভিন্ন সেবা পাওয়ার অ্যাপস চালু করা হয়। যার পরিকল্পনাকারী ছিলেন ইউএনও সরকার অসীম কুমার। আগে যেখানে বছরে ইউনিয়ন পরিষদে ৫০-৬০ হাজার টাকা ট্যাক্স আদায় হতো। অ্যাপসের মাধ্যমে চলতি অর্থ বছরে সেখানে ৭ লাখ টাকা ট্যাক্স আদায় হয়েছে।

খবর২৪ঘণ্টা, জেএন


Download our Mobile Apps Today