ঢাকামঙ্গলবার , ৫ ডিসেম্বর ২০১৭
                     
আজকের সর্বশেষ সবখবর

দুর্নীতির দুই মামলায় খালেদার জামিন মঞ্জুর

admin
ডিসেম্বর ৫, ২০১৭ ১১:৫৫ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

খবর২৪ঘণ্টা.কম,ডেস্ক:জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় জামিন পেয়েছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

মঙ্গলবার রাজধানীর বকশিবাজার আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ জজ ড. আখতারুজ্জামানের আদালতে হাজির হয়ে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করলে খালেদা জিয়ার জামিন মঞ্জুর করেন আদালত।

আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার এবং দুদকের পক্ষে ছিলেন মোশাররফ হোসেন কাজল।

গত ৩০ নভেম্বর দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় আত্মপক্ষ সমর্থন করে বাকি বক্তব্য উপস্থাপনের জন্য হাজির না হওয়ায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন এই আদালতের বিচারক আখতারুজ্জামান। মঙ্গলবার থেকে পরবর্তী তিনদিন এই মামলার যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে।

বিএনপি চেয়ারপার্সনের আইনজীবীরা জানান, বিএনপি চেয়ারপার্সন সব সময়ই আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। ন্যায় বিচার না পাওয়ার শঙ্কা থাকা সত্বেও তিনি আদালতের সব কাজে সহযোগিতা করেছেন। ৩০ নভেম্বর বাম দলগুলোর হরতালে বিএনপি সমর্থন জানিয়েছে। একটি বড় রাজনৈতিক দলের প্রধান হিসেবে তিনি হরতালের মধ্যে আদালতে হাজির হতে পারেননি। এরপরও তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলা থেকে জানা যায়, ২০০৫ সালে কাকরাইলে সুরাইয়া খানমের কাছ থেকে ‘শহীদ জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট’-এর নামে ৪২ কাঠা জমি কেনা হয়। কিন্তু জমির দামের চেয়ে অতিরিক্ত এক কোটি ২৪ লাখ ৯৩ হাজার টাকা জমির মালিককে দেয়া হয়েছে বলে কাগজপত্রে দেখানো হয়, যার কোনো বৈধ উৎস ট্রাস্ট দেখাতে পারেনি। জমির মালিককে দেয়া ওই অর্থ ছাড়াও ট্রাস্টের নামে মোট তিন কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা অবৈধ লেনদেনের তথ্য পাওয়া গেছে।

২০১০ সালের ৮ আগস্ট জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে অর্থ লেনদেনের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়াসহ চারজনের নামে তেজগাঁও থানায় দুর্নীতির অভিযোগে এ মামলা করেছিলেন দুর্নীতি দমন কমিশনের সহকারী পরিচালক হারুন-অর-রশিদ।

এ মামলার অপর আসামিরা হলেন খালেদা জিয়ার সাবেক রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী, হারিছের তখনকার সহকারী একান্ত সচিব ও বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌচলাচল কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জিয়াউল ইসলাম মুন্না এবং ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খান।

খবর২৪ঘণ্টা.কম/রখ

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।