ঢাকাবৃহস্পতিবার , ১৪ মার্চ ২০২৪
আজকের সর্বশেষ সবখবর

রাজশাহীতে ট্রাফিক পুলিশের বিশেষ অভিযান,দুই কোটি তেষট্টি লক্ষ সাতান্ন হাজার টাক জরিমানা

নজরুল ইসলাম জুলু:
মার্চ ১৪, ২০২৪ ১২:৩৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

রাজশাহী মহানগরীতে উন্নত ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা চালু করতে উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) (অতিরিক্ত ডিআইজি পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত) অনির্বান চাকমা’র নির্দেশনায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে আসছে আরএমপি’র ট্রাফিক বিভাগ। উপ-পুলিশ কমিশনার অনির্বান চাকমার সার্বিক তত্ত্বাবধানে অভিযান গুলোতে নেতৃত্ব দিচ্ছেন অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) হেলেনা আকতার।

রাজশাহী মহানগরীতে হেলমেট ছাড়া ও সাইলেন্সার বিহীন মোটরসাইকেলে বেপরোয়া গতির বাইকারদের দৌরাত্ম্য বৃদ্ধি পেয়েছে । এতে করে সড়ক অনিরাপদ হয়ে উঠেছে। মহানগরীর সড়কগুলোতে বৈধ যানবাহন নিয়ম মেনে যেন চলাচল করে এবং শৃঙ্খলা ফিরে আসে সে লক্ষ্যে আরএমপি’র ট্রাফিক বিভাগ এ বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে আসছে।

বিশেষ অভিযানে রেজিস্ট্রেশনবিহীন গাড়ি, ট্রাফিক সিগন্যাল অমান্য, উল্টোপথে গাড়ি চালানো, হেলমেট না থাকা, মোটরসাইকেলে তিনজন আরোহন এবং চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্সসহ গাড়ির প্রয়োজনীয় কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করা হয় এবং ট্রাফিক  আইন লঙ্ঘনকারীদের জরিমানা করা হয়। পাশাপাশি কাগজপত্র প্রদর্শনে ব্যর্থতার ক্ষেত্রে সে গাড়ি জব্দ করা হচ্ছে।  ট্রাফিক বিভাগ, রাজশাহী হতে প্রাপ্ত তথ্য মোতাবেক  সেপ্টেম্বর,২০২৩ হতে  ফেব্রুয়ারী,২০২৪ পর্যন্ত বিগত ৬মাসে অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) হেলেনা আকতারের সার্বিক তত্ত্বাবধানে পরিচালিত ট্রাফিক অভিযানে সর্বমোট ২,৬৩,৫৭,৯১৪টাকা (দুই কোটি তেষট্টি লক্ষ সাতান্ন হাজার নয় শত চৌদ্দ টাকা বিভিন্ন ট্রাফিক আইন অমান্য করায় জরিমানা বাবদ আদায় করা হয়েছে।

২১শে আগষ্ট, ২০২৩ আরএমঅপি তে যোগদানের পর থেকে রাজশাহী মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) হেলেনা আকতার  নিয়মিত ডিউটির পাশাপাশি চেকপোস্টের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশনবিহীন যানবাহন, নিষিদ্ধ ঘোষিত যানবাহন, হেলমেটবিহীন মোটরসাইকেল চালক ও মোটরসাইকেলে তিনজন আরোহীদের বিরুদ্ধে অভিযান আরো জোরদার এবং অভিযান  অব্যাহত রেখেছেন। তিনি আরএমপিতে যোগদানের পরই ঘোষণা দেন “আরএমপিতে কোনো বৈধ কাগজপত্রহীন যানবাহন চলবেনা। ”  আরএমপি’র সড়ক গুলোকে নিরাপদ ও যানজট মুক্ত রাখতে উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) অনির্বান চাকমা’র নির্দেশে ও উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) হেলেনা আকতারের তত্ত্বাবধানে ৫ জন ট্রাফিক পুলিশ পরিদর্শক ও ২৬জন সার্জেন্ট অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন।

 ট্রাফিক আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে নেওয়া হচ্ছে বিভিন্ন আইনানুগ ব্যবস্থা।  উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) হেলেনা আকতারের এমন অভিযান পরিচালনার জন্য তিনি ইতোমধ্যে সাধারণ মানুষের প্রশংসা কুড়িয়েছেন।  আরএমপি কে যানজট মুক্ত ও সড়ক কে নিরাপদ করার লক্ষ্যে তার পরিচালিত  অভিযানগুলো জনমনে সাড়া ফেলেছে। উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) হেলেনা আকতার রীতিমতো ট্রাফিক আইন অমান্যকারীদের কাছে আতঙ্কের নাম!   সম্প্রতি দৈনিক জবাবদিহির সাথে একান্ত সাক্ষাৎকারে  হেলেনা আকতার বলেন “পুলিশের চাকরি  অন্যতম চ্যালেঞ্জিং পেশা।  এ পেশায় ঝুঁকি ও কষ্ট বেশি। তবে ট্রাফিক পুলিশদের কষ্ট ও ঝুঁকি তুলনামূলকভাবে বেশি। রাত-দিন, ঝড়-বৃষ্টি, তাপদাহ উপেক্ষা করে ট্রাফিক পুলিশদের দায়িত্ব পালন করতে হয়।

 রাজশাহী মেট্রোপলিটন ট্রাফিক পুলিশ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করছে আরএমপি কে যানজট মুক্ত ও নিরাপদ রাখতে।” তিনি জানান ট্রাফিক আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে উনি জিরো টলারেন্স নীতি মেনে চলেন। তিনি রাজশাহী মহানগরীর সার্বিক ট্রাফিক পরিস্থিতির উন্নয়ন ও সড়ক গুলোকে নিরাপদ ও ঝুঁকি মুক্ত রাখতে সবার  সহযোগিতা চান। সেইসাথে সবাইকে ট্রাফিক আইন মেনে চলার জন্য অনুরোধ করেন।

 উল্লেখ্য তিনি ২০২৩ সালে সততা,নিষ্ঠা, পেশাদারিত্ব, প্রশংসনীয় ও দৃষ্টান্তমূলক কর্মের স্বীকৃতিস্বরূপ “Police Force Exemplary Good Service Batch-2023” এর জন্য  পুরস্কার পেয়েছেন এবং ২০২৪ সালে মাননীয় আইজিপি’র কাছ থেকে আইজিপি ব্যাচ পান।

জ/ন

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।